electric scooter bd

Best electric scooter in Bangladesh

ইলেকট্রিক স্কুটার গুলো হলো দুর্দান্ত সব পরিবহন ব্যবস্থা গুলোর মধ্যে অন্যতম। এগুলোর জন্য কোন লাইসেন্সের দরকার পড়ে না যেমন দরকার হয় গাড়ি চালাতে কিংবা মোটরসাইকেল চালাতে। এগুলো চালানো শিখতেও খুব সময়ের দরকার হয় না। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো যে এগুলো থেকে পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারক কোন গ্যাস সৃষ্টি হয় না তাই বলা যায় এগুলো বেশ পরিবেশবান্ধব। আপনার চাহিদা মত, বাজেট এবং ভালো উপাদানের উপর নির্ভর করে আজকের আর্টিকেল সাজানো হয়েছে সেরা ১০টি ইলেকট্রিক স্কুটার নিয়ে। এই আর্টিকেলটি পড়লে আপনারা জানতে পারবেন ইলেকট্রিক স্কুটার গুলো কেমন হয় এবং চলাচলের সুবিধার জন্য এগুলো কতটা আনন্দায়ক। চলুন তাহলে দেরি না করে দেখে নিই সেরা ১০টি ইলেকট্রিক স্কুটারের আদ্যোপান্ত।

নিচে সেরা ১০টি ইলেকট্রিক স্কুটার সম্পর্কে বিবরণ দেওয়া হলোঃ

Razor E100 Electric Scooter:

যারা ইলেকট্রিক স্কুটার চালাতে ভালোবাসেন তাদের পছন্দের তালিকায় সবার প্রথমে যে নামটি থাকে তা হল Razor। যদিও এই স্কুটার কোম্পানিটি বলে যে তাদের E100 লাইনটি ১২০ পাউন্ড এর বেশি ওজন ধারন সম্পন্ন কিন্তু এটি প্রায় ৮০ পাউন্ড এর কাছাকাছি ওজন ধারণ করতে সক্ষম। তবে এর চলার গতি খুব ভালো। আপনি এই স্কুটারকে ৮ থেকে ১০ এম পি এইচ গতিতে চালাতে পারবেন। কিন্তু কোনো এবড়ো থেবড়ো জায়গা দিয়ে চালাতে পারবেন না। এছাড়াও আপনার ওজন বেশি হলে এটি আস্তে আস্তে চলবে। এটার ব্যাটারি ডেকের থেকে নিচে থাকে তাই বৃষ্টির দিনে এটা চালাতে অসুবিধা হয় না। এর ব্যাটারি লিড এসিড রিচার্জেবল। তবে খেয়াল রাখতে হবে যেন বেশি গভীর পানিতে এটা চালানো না হয়। এই ইলেকট্রিক স্কুটার গুলো অনেক হাই কোয়ালিটি সম্পন্ন বিশেষ করে এর ব্যাটারি। একবার সম্পূর্ণরূপে চার্জ হতে ১২ ঘন্টা পর্যন্ত সময় নেয়। এর মূল্য ১২৫ ডলার।

Razor E200 Electric Scooter:

Razor E100 এর মত Razor E200 এর ব্যাটারিও ২৪ ভোল্টের, চার্জ হতে সময় লাগে ১২ ঘণ্টা। কিন্তু দুটোর মধ্যে পার্থক্য আছে স্পিড, সাই্‌জ, স্কুটার এর ওজন এবং ওয়েট ক্যাপাসিটির উপর। যাই হোক এটা E100 এর চেয়ে দ্রুত গতিতে চলতে সক্ষম। এটার ম্যাক্সিমাম স্পিড ১২ এম পি এইচ, একটানা চালানো যায় ৪০ মিনিট পর্যন্ত এবং এর ওজন ধারণ ক্ষমতা ১৫৪ পাউন্ড। এটা এত আকর্ষণীয় ডিজাইনে তৈরি যে যখন আপনি এই স্কুটারটি চালাবেন লোকজন শুধু তাকিয়ে থাকবে। এটার দাম ১৯৮ ডলার।

Razor E300s Seated Electric Scooter:

সবগুলো ইলেকট্রিক স্কুটার এর মধ্যে এই মডেলটি হলো সবচেয়ে শক্তিশালী ইলেকট্রিক স্কুটার। একবার চার্জ দিলে এটি একটানা ৪০ মিনিট ধরে ১৫ এমপিএইচ স্পিডে চলতে পারে। তবে এর মধ্যে যে বৈশিষ্ট্যগুলো আছে সেগুলো বিভিন্ন জলবায়ু, চালানোর দক্ষতা এবং যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণ এর উপর পরিবর্তিত হতে পারে। স্কুটারটির ওজন ধারণ ক্ষমতা ২২০ পাউন্ড পর্যন্ত কিন্তু তার চেয়েও বেশি ওজন ধারণ করতে সক্ষম। এজন্য বিশ্বের অনেক জায়গায় এই স্কুটারটির অনেক জনপ্রিয়তা রয়েছে। এর টায়ার গুলো অনেক প্রশস্ত হাওয়ায় এটা অনেক স্থিতিশীল এবং আরামদায়ক। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টি এই স্কুটারের তা হল এর সিট অপসারণযোগ্য। আপনি চাইলে সিট ব্যবহার করতে পারেন আবার যদি না চান তাহলে অপসারণ করে এটি চালাতে পারবেন। চালানোর সময় কোন শব্দ নির্গত হয় না। এটার দাম হল ২৮৯ ডলার।

Xiaomi Mi Electric Scooter:

রেজারের পর ইলেকট্রিক স্কুটারের দুনিয়ায় শাওমি হল আর একটি মূল্যবান ব্রান্ড। এই স্কুটারটি চীনের তৈরি। এই কোম্পানিটি এটি তৈরি করে অত্যন্ত সম্মানজনক পুরস্কার আই এফ ডিজাইন অ্যাওয়ার্ড ২০১৭ পেয়েছে। এই স্কুটারটির মোটর অনেক শক্তিশালী যা কিনা ২৫০ ওয়াট বিশিষ্ট একটা মোটর। এটি একটানা ৭২ মিনিট চালাতে পারবেন এবং ১৫ এমপিএইচ স্পিডে। এই স্কুটারটির চাহিদা প্রচুর কারণ মাত্র ৩ সেকেন্ডের মত সময় লাগে এটা ভাঁজ করে রাখতে। এর দাম একটু বেশি কিন্তু এটা খুব সহজে গাড়ির লকারে এবং গ্যারেজে রাখা যায়। মূলত টিনএজারদের জন্য এটা তৈরি করা। এটার ওজন ধারণক্ষমতা ২৬.৯ পাউন্ড।

Glion Dolly Foldable Electric Scooter:

কিছু কিছু মানুষ স্কুটার চালাতে পছন্দ করে কিন্তু সব সময় প্রয়োজন পরলেও ক্যারি করতে চায় না কারণ এগুলো দেখতে অনেকটা উদ্ভট হয়ে থাকে। কিন্তু সেক্ষেত্রে Glion Dolly ইলেকট্রিক স্কুটারটি একটু আলাদা কারণ আপনি যেখানে যেতে চান এটি সঙ্গে নিয়ে যেতে পারবেন। ঠিক আমরা যেমন ট্রাভেল ব্যাগ সাথে নিতে পারি এই স্কুটারটিও ট্রাভেল ব্যাগ এর মত সাথে নিয়ে হাঁটা যায়। এর আরও একটি উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য হলো এটি মাত্র ৩.৫ ঘন্টা চার্জ দিলেও চলে কারণ এর মধ্যে রয়েছে ২৫০ওয়াট মোটর। পুরোপুরি চার্জ দিলে এটি ১৫ এমপিএইচ সর্বোচ্চ গতিতে প্রায় ১ ঘন্টা অবিরাম চলতে পারে। তবে অবশ্যই আবহাওয়া, চলাচলের রাস্তা এবং রাইডারের ওজনের উপর নির্ভর করে এটি কতদিন চালাতে পারবেন।

Razor Rx200 Electric Scooter:

রেজারের এই মডেলটি রেজার E200 থেকে একধাপ উপরে। চাকাগুলো ভারী এবং যেকোন আবহাওয়া ও রাস্তায় এটি চলতে পারে। টিনেজার এবং পূর্ণ বয়স্কদের জন্য অত্যন্ত চমৎকার একটি ইলেকট্রিক স্কুটার। এর ওজন ধারণ ক্ষমতা ১৫৫ পাউন্ড এর কাছাকাছি। এটি একটি ভালো কমিউটেটর হিসাবে অধিকাংশ মানুষের মনেই জায়গা করে নিয়েছে। এর ৪০ মিনিটে সর্বোচ্চ গতি ১২ এমপিএইচ। বাজারে এর মূল্য ৪৪৪.৪৪ ডলার।

Razor Ecosmart Metro Electric Scooter:

এটি অনেক উন্নত মানের কমিউটেটর হিসাবে মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছে। যে কেউ এটি ব্যবহার করতে পারবে গাড়ির বদলে চলাচলের চমৎকার বাহন হিসেবে। এটা চার্জ হতে কমপক্ষে ১২ ঘন্টা সময় নেয়। একবার সম্পূর্ণরূপে চার্জ নিলে এটি কমপক্ষে ১২ এমপি এইচ অনায়াসে চলতে পারে।

Gotrax Gxl Electric Scooter:

Gotrax হল কালো রংয়ের দারুন একটি স্কুটার। এর টায়ার ৮.৫ ইঞ্চি চওড়া এবং এজন্যই এটি ২২০ পাউন্ড ওজন ধারণ করতে সক্ষম। কমপক্ষে ৪ ঘন্টা চার্জ করলে এটা ১২.৫ এমপিএইচ পর্যন্ত ট্রাভেল করা যায়। এটি খুব সহজেই ভাঁজ করে রাখা যায়। স্কুটারটির ওজন মাত্র ৩১ পাউন্ড।

Nanrobot D4+Electric Scooter:

ন্যানো রোবট ইলেকট্রিক স্কুটারটিতে ১০০০ ওয়াট মোটর লাগানো আছে এবং এটি যেকোনো পাহাড়েও উঠতে সক্ষম। এর ম্যাক্সিমাম স্পিড হল ৪০ এমপিএইচ। এটা এতো দ্রুতগতিসম্পন্ন যে রাইডারদের এটা চালানোর সময় এর ব্রেক শক্ত করে ধরে রাখতে হয় এবং মাথায় অবশ্যই হেলমেট পরতে বলা হয়। এটা পানি এবং কাদার মধ্য দিয়েও ভালোভাবে চলতে পারে। তবে বাংলাদেশে এটির শিপমেন্ট হয় না। স্কুটারটি ওজন ধারণ করতে সক্ষম ৩৩০ পাউন্ড পর্যন্ত। একবার চার্জ দিলে কমপক্ষে ৪৫ এম পিএইচ নির্বিঘ্নে ট্রাভেল করা যায়।

Evo Electric Scooter:

ইভো ইলেকট্রিক স্কুটার এর ডিজাইন অত্যন্ত আকর্ষণীয় এবং যে কেউ এর রাইডিং উপভোগ করতে পারবে। এর প্রধান বৈশিষ্ট্য হলো এর ব্যাটারির ভোল্টেজ ১৬০০ ওয়াট এবং খাঁড়া পাহাড়ে স্কুটারটি বাতাসের মত চলতে পারে। এর এক্সিলেটরের সাহায্যে স্পিড বাড়ানো এবং কমানো যায়। এর ম্যাক্সিমাম স্পিড ৩০ এমপিএইচ এবং ৬ থেকে ৮ ঘন্টা চার্জ দিলে স্কুটারটি একটানা ৬০ মিনিট চলতে পারে। এর দাম পড়বে ৮৯৯.৯৫ ডলার। এই স্কুটারটির ওজন ধারণ ক্ষমতা ২৬৫ পাউন্ড পর্যন্ত।

সবশেষে বাংলাদেশ এই স্কুটার গুলো একেবারেই নতুন। এগুলো এখানে দেখা যায় না বললেই চলে। কিন্তু এগুলো সম্পর্কে জানা থাকলে আপনি খুব সহজেই এগুলো পরিবহনের জন্য ব্যবহার করতে পারেন। এই স্কুটারগুলোর প্রত্যেকটি বর্তমানে ট্রাভেল করার জন্য বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছে। এগুলো কেনার আগে অবশ্যই এর গুণগত মান নিশ্চিত হয়ে কিনবেন। আশাকরি, এই আর্টিকেলটি ইলেকট্রিক স্কুটার কেনার আগে বেশ উপকারে আসবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *